• মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৯:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অপসারণ হয়নি ঝড়ে পড়া বটগাছ, খোলা আকাশের নীচে দুই পরিবার বিষাক্ত প্রাণী থেকে বাঁচতে যে দোয়া পড়বেন আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করে— আ.লীগের প্লাটিনাম জুবিলিতে এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তির তোষণ না করলে দেশ আরও এগিয়ে যেতো : পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রাপ্ত হলেন ঠাকুরগাঁও জেলা কমান্ড্যান্ট মিনহাজ আরেফিন ঠাকুরগাঁওয়ে জনপ্রতিনিধি ও নাগরিকদের মধ্যে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত মদিনায় কমিউনিটি সভা: সৌদি প্রবাসীদেরকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিনন্দন, দিকনির্দেশনা ঠাকুরগাঁওয়ে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী জাহাঙ্গীর আলম হাজতে কেন শহিদুলের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা ? ঠাকুরগাঁওয়ে পাটচাষি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ভয়াবহ এক অভিশাপের নাম ফারাক্কা; ছয় কোটি মানুষ পানির অভাবে ধুকছে

Reporter Name / ১৮০ Time View
Update : শুক্রবার, ১৭ মে, ২০২৪

বাংলাদেশের জন্য ফারাক্কা এক ভয়াবহ অভিশাপের নাম যার প্রভাবে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে দেশের ছয় কোটি মানুষ পানির অভাবে ধুকছে, গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্পের ৬৫ শতাংশ অঞ্চল সেচের পানির অভাবে মরুভূমিতে পরিণত হচ্ছে। এই অভিশাপের প্রাকৃতিক, ভৌগলিক ও সামাজিক নানাবিধ ভয়াবহ নেতিবাচক প্রভাবের পাশাপাশি শুধু অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণই বছরে ৫হাজার কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার (১৬ই মে ২০২৪) সকালে বাংলাদেশ মুসলিম লীগের উদ্যোগে পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ফারাক্কা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় এ সব কথা বলেন নেতারা।

নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দলীয় মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, স্থায়ী কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন আবুড়ী, সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, এ্যাড. আফতাব হোসেন মোল্লা, সৈয়দ আব্দুল হান্নান নূর, অতিরিক্ত মহাসচিব কাজী এ.এ কাফী, কেন্দ্রীয় নেতা খান আসাদ, খোন্দকার জিল্লুর রহমান, শেখ.এ সবুর প্রমুখ।

পরীক্ষামূলক ভাবে ফারাক্কা বাঁধ চালু করার ভাঁওতাবাজিতে স্বাধীনতা কালীন সময়ের বন্ধু রাষ্ট্র ভারতের প্রবল কর্তৃত্বপরায়ণ ও আগ্রাসনবাদী হয়ে ওঠার স্বরূপ দেশের জনগণের নিকট উন্মোচিত হয়ে পড়ে।

১৯৪৭ সালের বুনিয়াদি স্বাধীনতা তথা আজাদি আন্দোলনের অন্যতম সদস্য তৎকালীন আসাম প্রাদেশিক মুসলিম লীগের সভাপতি, দূরদর্শী মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ফারাক্কা অভিশাপের ভয়াবহতা উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন।

বিভ্রান্ত ও কিংকর্তব্যবিমুঢ় গোটা জাতীকে তিনি ১৯৭৬ সনের ১৬ই মে ফারাক্কা অভিমুখে লং মার্চের ডাক দিয়ে বাংলাদেশী জাতিসত্তায় বলীয়ান হয়ে মাথা উঁচু করে নিজের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হওয়ার প্রেরণা যুগিয়েছিলেন। কৃতজ্ঞতা স্বরূপ প্রতি বছর ১৬ই মে দিনটিকে ফারাক্কা দিবস হিসাবে পালন করে জাতি মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর প্রতি শ্রদ্ধা, ভালবাসা ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে থাকে।

দলীয় মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের বলেন, মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর মত মুসলিম জাতিসত্তা আদর্শে বলীয়ান রাজনীতিবিদদের অনুপস্থিতির কারণেই দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব-গণতন্ত্র আজ হুমকির মুখে। আধিপত্যবাদীদের কালো ছায়া প্রতিনিয়ত পড়ছে দেশের মানচিত্রে। ফারাক্কা দিবস বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ মাইলস্টোন, কার্যত বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও জাতিসত্তার প্রতীক।

এ ইসলাম/টাঙ্গন টাইমস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
https://slotbet.online/