• শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সংকোচ না করে আমাকে ডাকবেন, পরামর্শ দিবেন-এমপি সুজন ঠাকুরগাঁওয়ে ৪৫ লাখ টাকার হিরোইন উদ্ধার চুরির অপবাদে দায়ন ঋষির মৃত্যুর ঘটনায়, গ্রেফতার-১ চুরির অভিযোগে নৃ-গোষ্ঠীর দুই শিশুকে পাশবিক নির্যাতন, মায়ের মৃত্যু আগামী ৩ জুন ঠাকুরগাঁওয়ে দূর্নীতি রোধে গণশুনানি এমপি আজিমের হত্যাকান্ড মর্মান্তিক, দু:খজনক ও অনভিপ্রেত:পররাষ্ট্রমন্ত্রী চুরির অপবাদে মা ও ছেলেকে নির্যাতন, ৭ ঘন্টা পর মায়ের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাচনের হালচাল জনতা ইমেজহীন ;একমুখী নির্বাচনের সম্ভাবনা রূপান্তরের আয়োজনে ঠাকুরগাঁওয়ে পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত ঠাকুরগাঁওয়ে দুই উপজেলায় বিজয়ী হলেন যারা

প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ !

Reporter Name / ৮১ Time View
Update : রবিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২৪

“ভূমি দস্যূদের বিচারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন” শিরোনামে গত ৪ এপ্রিল দৈনিক লোকায়ন পত্রিকাসহ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের তীব্র্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বায়নাসূত্রে জমির মালিক সরকারপাড়া মহল্লার মোর্শাহেদ পারভেজ রকি এবং এ ঘটনার মধ্যস্থতাকারি সালন্দর ৯নং ওয়ার্ডের মফিজুল মেম্বার।

তারা গত শুক্রবার (৫এপ্রিল) এক যৌথ প্রতিবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

তারা জানায়, গত ৪ এপ্রিল দৈনিক লোকায়ন পত্রিকাসহ বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় আমাদের নাম উল্লেখ করে “ভূমি দস্যূদের বিচারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। যা কোন ভাবেই সত্য নয়। মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং বানোয়াট কল্পকাহিনীর নাটক সাজিয়ে সাংবাদিকদের ভূল বুঝিয়ে এ তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে।

মোর্শাহেদ পারভেজ রকি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান সঠিকতা যাচাই না করে উদ্দেশ্য প্রণোদিত, ভিত্তিহীন, বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় আমি, আমরা এবং আমাদের পরিবার সামাজিক ভাবে হেয়প্রতিপন্ন, গণমাধ্যমে হেনস্থা, বিব্রতকর পরিস্থিতি এবং মানহানির শিকার হয়েছে। যা আমাদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

প্রকৃত ঘটনা, আরাজি শিংপাড়া মৌজার ২০০ দাগে সিএস এবং এসএ রেকর্ড অনুযায়ী ৬৩ শতাংশ জমির মালিক নিশু পলী। তিনি মারা যাওয়ার পরে তার দুই সন্তান বাবু চরন এবং রাম প্রসাদ জমির মালিক। পরে ১৯৭৩ সালে বাবু চরন এবং রাম প্রসাদ সাহের উদ্দীনের কাছে জমির মালিকা হস্তান্তর করেন।

সাহের উদ্দীন মারা গেলে উত্তরাধিকার সূত্রে তার দুই সন্তান, এক ছেলে মকলেসুর রহমান ৪২ শতাংশের মালিক এবং এক মেয়ে মোছা: আয়শা খাতুন ২১ শতাংশের মালিক হন। ১৯৯৬ সালে দলিল মূল্যে মকলেসুর রহমান তার মালিকানা জমি মো: জালাল উদ দীনের কাছে হস্তান্তর করলেও আয়শা খাতুন জমির মালিকানা হস্তান্তর করেননি।

তিনি আরও জানান মোছা: আয়শা খাতুন ২১ শতাংশ জমির মালিক তার প্রমান স্বরুপ ওয়ারিশন সনদ, জমির খাজনা, খারিজ সবই হালনাগাত আছে। আমি মোর্শাহেদ পারভেজ রকি আইনজীবীর মাধ্যমে সকল বৈধ কাগজপত্র যাচাই করে জমি বায়নামা করি। যারও বৈধ কাগজপত্র আছে। এটা কি অপরাধ ? এটা কি ভূমি দস্যূতা ? সংবাদমাধ্যম সমাজের দর্পণ। প্রকৃত ঘটনা বের আনা সাংবাদিকদের দায়িত্ব।

গোলাম সারোয়ার সম্রাট এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন জমির কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা না দেখিয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকী-ধমকী দিয়ে উল্লেখিত জমিতে ঘর তোলার চেষ্টা করে এবং আমার বাবাকে হত্যার হুমকি দেয়। যা উদ্দেশ্য প্রণোদিত, ভিত্তিহীন, বানোয়াট প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সালন্দর ৯নং ওয়ার্ডের মফিজুল মেম্বার প্রতিবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান আমি একজন ইউপি সদস্য, আমার কাছে একটা অভিযোগ এসেছিল। যে অভিযোগের প্রেক্ষিতে  আমরা উভয় পক্ষের লোকজনকে নিয়ে বসে আলোচনা হয়েছিল। বিষয়টি সমাধানের জন্য আমি ইউপি সদস্য হিসেবে চেষ্টা করেছি মাত্র। কিন্তু গোলাম সারোয়ার সম্রাট  সংবাদ সম্মেলনে আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ তুলেছেন কোন ভাবে কাম্য ছিল না। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
https://slotbet.online/