• মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অপসারণ হয়নি ঝড়ে পড়া বটগাছ, খোলা আকাশের নীচে দুই পরিবার বিষাক্ত প্রাণী থেকে বাঁচতে যে দোয়া পড়বেন আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করে— আ.লীগের প্লাটিনাম জুবিলিতে এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তির তোষণ না করলে দেশ আরও এগিয়ে যেতো : পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রাপ্ত হলেন ঠাকুরগাঁও জেলা কমান্ড্যান্ট মিনহাজ আরেফিন ঠাকুরগাঁওয়ে জনপ্রতিনিধি ও নাগরিকদের মধ্যে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত মদিনায় কমিউনিটি সভা: সৌদি প্রবাসীদেরকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিনন্দন, দিকনির্দেশনা ঠাকুরগাঁওয়ে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী জাহাঙ্গীর আলম হাজতে কেন শহিদুলের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা ? ঠাকুরগাঁওয়ে পাটচাষি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ঠাকুরগাঁওয়ে দরপত্র ছাড়াই লাখ লাখ টাকা গাছ কর্তন, কর্তৃপক্ষ নিরব

Reporter Name / ২৪২ Time View
Update : মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট ইউনিয়নের গ্রামীণ ব্যাংক শাখার ব্যাবস্থাপক পূর্ণ চন্দ্র বর্মনের বিরুদ্ধে নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে নিজের ইচ্ছে মতো দরপত্র ছাড়াই ৪৮টি মেহগনি গাছ কর্তন করে বিক্রী করার অভিযোগ উঠেছে। গাছ গুলোর আনুমানিক মুল্য প্রায় ২০ লাখ টাকা বলে ধারনা করা হচ্ছে। অপরদিকে স্থানীয় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাবরহাট ইউনিয়নের গ্রামীণ ব্যাংক শাখায় গিয়ে এমনই চিত্র দেখা যায়।

স্থানীয়রা জানায়, গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) থেকে জাবরহাট ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম বোদং লোকজন নিয়ে এসে গ্রামীণ ব্যাংকের শাখা কার্যালয় চত্বরের মেহগনি জাতের অনেক পুরোনো গাছ কর্তন করতে শুরু করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করা হয়। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন অবগত হয়ে কোন ধরনের পদক্ষেপ নেয়নি বলে জানায় তারা।

বনসংরক্ষণ আইন অনুযায়ী বনবিভাগের অনুমতিক্রমে প্রকাশ্যে দরপত্রের মাধ্যমে সরকারি, বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানের গাছ কর্তন করার কথা। কিন্তু জাবরহাট ইউনিয়নের গ্রামীণ ব্যাংক শাখার ব্যাবস্থাপক পূর্ণ চন্দ্র বর্মন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে নিজের পকেট ভারী করার জন্য স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের কাছে ৪৮টি মেহগনি গাছ বিক্রী করে দিয়েছেন।

জাবরহাট ইউনিয়নের গ্রামীণ ব্যাংক শাখার ব্যাবস্থাপক পূর্ণ চন্দ্র বর্মনের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি। তার কার্যালয়ে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে তার এরিয়া কার্যালয়ে গিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেও কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া বলেন বিষয়টি অবগত হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে গেলে তিনি বলেন যেগুলো কাটছে কাটছে, বাকি গুলো বনবিভাগের সাথে আলোচনা করে প্রক্রিয়া অনুযায়ী কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন।

পীরগঞ্জ বীটের বন কর্মকর্তা শাহজাহান আলী বলেন, এব্যাপারে গ্রামীণ ব্যাংকের কেউ আমাদের কাছে আসেনি। তবে স্থানীয়রা বিষয়টি অবগত করলে আমরা স্থানীয় প্রশাসনকে অবগত করি।

পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: রমিজ আলম বলেন আমার কাছে ইনফরমেশন এসেছিল। গ্রামীণ ব্যাংকের ওরাও এসেছিল। আপাতত বন্ধ রাখতে বলেছি। বিধি দেখে পরবর্তীতে নির্দেশ দেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
https://slotbet.online/